কোলেস্টেরল কি?

প্রায়ই শোনা যায় কোলেস্টেরল শব্দটি। আসুন আমরা কোলেস্টেরল সম্পর্কে সংক্ষিপ্তভাবে জানি। কোলেস্টেরল হল দেহের ভেতর তৈরি হওয়া মোমের মত এক ধরনের চর্বি। এটি বেড়ে গেলে মানব দেহে তৈরি হতে পারে বিভিন্ন রোগ।

এই কোলেস্টেরলের রয়েছে কিছু ধরন। যেমন: ট্রাই গ্লিসারাইড, এল বি এল, এইচডিএল ও আরেকটি হলো টোটাল কোলেস্টেরল ।

এদের মধ্যে তিনটি হলো খারাপ আরেকটি হলো গুড কোলেস্টেরল, আর তিনটি ব্যাড কোলেস্টেরল জমা হয় রক্তনালিতে। যা কিনা রক্তনালীর স্বাভাবিক স্রোত ব্যাহত করে। যার ফলে বেড়ে যেতে পারে স্ট্রোক ও হার্ট অ্যাটাক।

তাই আসুন কোলেস্টরেল কে নিয়ন্ত্রণ করি। স্ট্রোক ও হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমাই ।

কোলেস্টেরল বিহীন খাবার সমূহ:

  • সবুজ শাকসবজি
  • আমলকি
  • কমলা
  • অ্যাভোকাডো
  • মাশরুম
  • বীন
  • বেগুন
  • টমেটো
  • রসুন
  • কাঁচা পেঁপে
  • রেড আপেল সাইডার ভিনেগার
  • এক্সট্রা ভার্জিন অলিভ অয়েল ও
  • সয়া ।

কোন কোন খাবারে কোলেস্টেরল থাকে। সে খাবার গুলো কে তিনটি ভাগে ভাগ করে আমি দেখাবো।

বেশি কোলেস্টেরল যুক্ত খাবার:

মগজ, ডিমের কুসুম ,কিডনি, যকৃত, মাখন, ঝিনুক, চিংড়ি মাছ, কাঁকড়া, চিংড়ি ও ননীর পনির।

মধ্যম কোলেস্টেরল যুক্ত খাবার:

হলুদ ননী, হুইপড ক্রিম ,গরুর মাংস, মাছ ,মুরগির মাংস ও আইসক্রিম।

কম কোলেস্টেরল যুক্ত খাবার:

কটেজ চিজ, ননীযুক্ত দুধ, ননী তোলা দুধ, ডিমের সাদা অংশ, ফলমূল, গম, ভুট্টা, চাল, জোয়ার, বাদাম ও শাকসবজি।

যারা কোলেস্টেরল জনিত সমস্যায় ভুগছি তারা তাদের খাদ্য তালিকা থেকে এই খাবারগুলো চিহ্নিত করে রাখতে পারবেন।

নিয়মিত সয়া প্রোটিন গ্রহণ করুন কোলেস্টেরল এর ঝামেলা থেকে বাঁচুন। এই পণ্যটি পেতে যোগাযোগ করুন

প্রয়োজনীয় লেখাসমূহঃ

Leave a Comment

one × five =