ডায়াবেটিস সম্পর্কে জানুন

আজকের আলচ্য বিষয় ডায়াবেটিস রোগীর জন্য ‘হিজামা থেরাপী’

ডায়াবেটিস রোগ সম্পর্কে মোটামুটি আমরা সকলেই জানি, কিন্তু ডায়াবেটিসে ‘হিজামা থেরাপি’ আমরা অনেকেই জানিনা। হিজামা থেরাপির মাধ্যমে রোগীর ডায়াবেটিসকে নিয়ন্ত্রনে রাখা সম্ভব যেটা একদম ঝামেলা এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া মুক্ত। একটি কার্যকারী চিকিৎসা, যেটা আর্ন্তজাতিক ভাবে ব্যাপক প্রচলিত হচ্ছে।

‘হিজামা থেরাপি’ এবং ইসলামঃ

** হিজামা একটি সুন্নত ভিত্তিক চিকিৎসা ।
ইবনু মাসউদ (রাঃ) হতে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, মিরাজের রাত প্রসঙ্গে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন যে, এই রাতে ফিরিশতাদের যে দলের সম্মুখ দিয়েই তিনি যাচ্ছিলেন তারা বলেছেন, “আপনার উম্মাতকে রক্তক্ষরণের নির্দেশ দিন”। [গ্রন্থঃ ইবনু মা-জাহ (৩৪৭৭)]

সাঈদ ইবনু তালীদ (রহঃ) … আসিম ইবনু উমর ইবনু কাতাদা থেকে বর্ণিত যে, জাবির ইবনু আবদুল্লাহ (রাঃ) অসুস্থ মুকান্নাকে দেখতে যান। এরপর তিনি বললেনঃ আমি সরবো না, যতক্ষ না তাকে শিঙ্গা লাগানো হয়। কেননা, আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কে বলতে শুনেছি নিশ্চয় এর (শিঙ্গার) /Cupping/হিজামা এর মধ্যে রয়েছে নিরাময়। [গ্রন্থঃ সহীহ বুখারী (ইফাঃ), অধ্যায়ঃ ৬৩/ চিকিৎসা (كتاب الطب) হাদিস নম্বরঃ ৫২৯৪]

মুহাম্মদ ইবনু বাশশার (রহঃ) … ইবনু আব্বাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত যে, মাথায় বেদনার কারণে নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইহরাম অবস্থায় ‘লাহয়ি জামাল’ নামক একটি কুপের নিকটে মাথার শিঙ্গা লাগান। মুহাম্মাদ ইবনু সাওয়া (রহঃ) হিশাম (রহঃ) … ইবনু আব্বাস (রাঃ) বর্ণনা করেন রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইহরাম বাধা অবস্থায় অর্ধ মাথা বেদনার কারনে তার মাথায় শিঙ্গা লাগান। [গ্রন্থঃ সহীহ বুখারী (ইফাঃ)৫২৯৬।]

এখানে মাত্র তিনটি হাদীস উল্লেখ করা হল । সহীহ হাদীস গ্রন্থগুলোর চিকিৎসা অধ্যায় পড়লে হিজামা সম্পর্কে আরো অনেক হাদীস খুজে পাবেন ।

‘হিজামা থেরাপি’ এবং আধুনিক চিকিৎসাঃ

এটি বহু প্রাচীণ একটি মেডিক্যাল ট্রিটমেন্ট । এটি মানব দেহের দূষিত রক্ত টেনে বের করা হয় । বর্তমানে এই চিকিৎসাটি উন্নত বিশ্ব সহ ভারত ও পাকিস্তানে ব্যপক প্রচলন আছে । আশার কথা বাংলাদেশেও এর প্রভাব পড়েছে ।

আসুন জেনে নেই ডায়বেটিসের লক্ষণ সমূহ কি?কি?

ডায়াবেটিসের লক্ষন

  • রোগীর বার বার খিদে পাবে।
  • তৃষ্ণা বা গলা শুকিয়ে আসা।
  • ক্লান্তি বোধ।
  • ঘন ঘন মুত্রবেগ।
  • ওজন হ্রাস বা ওজন বৃদ্ধি।
  • চোখে ঝাপসা দেখা।
  • দেহে কোন ক্ষত দেরিতে শুকান।
  • বমি বমি ভাব।
  • চর্ম রোগ

যদি ডায়াবেটিসের লক্ষণ এর মধ্যে যে কোন লক্ষণ প্রকাশ পায় তবে দেরি না করে আপনার ডায়াবেটি পরিক্ষা করুন।

করনীয়ঃ

মানব দেহ থেকে দূষিত রক্ত বের করার ফলে শরীরের মাংশ পেশী সমূহের রক্ত প্রবাহ দ্রুততর হয় । এর ফলে পেশী, ত্বক শরিরের ভেতরের অরগান গুলোর কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায় ।শরীর ব্যাথা মুক্ত হয় । শরীরের ভারসাম্য ঠিক থাকে ।

নির্ভরযোগ্যতাঃ

আধুনিক equipment ব্যাবহার করে রোগীকে চিকিৎসা দেয়া হয় যেটা রোগীর জন্য আরাম দায়ক এবং ঝামেলাহীন।

আপনার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে রাখার জন্য “হিজামা থেরাপী (cupping)” গ্রহন করুন ইনসুলিনের ঝামেলা থেকে বাচুন, সুস্থ্য সুন্দর জিবন কাটান।

প্রয়োজনীয় লেখাসমূহঃ

Leave a Comment

two + 4 =